Gallery

ইন্ডিয়ার হিন্দু মালাউনদের বিকৃত জীবন এবং পৈশাচিক জীবনযাত্রা প্রসঙ্গে একটি তথ্য ভান্ডার।

হিন্দু ধর্ম এবং এই ধর্মের অনুসারীরা ধর্মের বৈশিষ্ট্য অনুসারেই চরম নোংরা, অশ্লীল, লম্পট, ধর্ষনপ্রিয় হয়ে থাকে। দুই উরুর সন্ধিস্থলে এদের সকল আরাধনা বা পুজা নিহিত। হিন্দুদের তথাকথিত দেব দেবীরাই এ অশ্লীলতা বা লম্পট্যের পথ প্রদর্শক।
wpid-2015-03-05-06_38_52

মূল আলোচনার শুরুতেই হিন্দুদের দেবতাদের সম্পর্কে একটু ধারনা থাকা দরকার। এবার আসুন হিন্দুদের প্রধান দেবতা শিব সম্পর্কে কিঞ্চিৎ তথ্য উপস্থাপন করি।

“চিরাচরিত নিয়ম অনুযাই একদিন শিব তার পত্নী পার্বতীর সাথে সঙ্গমে লিপ্ত হয়।
পার্বতী হলো দূর্গার অপর নাম। যখন শিবের প্রমত্ত যৌন উত্তেজনার ফলে পার্বতী মরনাপন্ন হয়ে পড়ে, তখন পার্বতী প্রান রক্ষার জন্য কৃষ্ণের উদ্দেশ্যে প্রার্থণা করতে থাকে। এ অবস্থায় কৃষ্ণ তার সুদর্শন চক্রের দ্বারা উভয় লিঙ্গ কেটে দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন করে পার্বতীর প্রান রক্ষা করে। আর এই স্মৃতিকে ধরে রাখার জন্য প্রবর্তন হয় এই যুক্তলিঙ্গ পূজা। (ভগবত, নবম স্কন্ধঃ৫৯৮)

এর পর পার্বতী নিজ যৌন চাহিদা মিটাতো তার পেছনের রাস্তা অর্থাত্ …. দিয়ে। আর
মাহাদেব যেহেতু লিঙ্গ কাটার পর পার্বতীর যৌন চাহিদা পুরা করতে পারত না। তাই পার্বতী অন্যান্য ভগবানদের সাথে ব্যভিচারে লিপ্ত হত। একদিনের ঘটনা। পার্বতী ভগবান বিষ্ণুর সাথে ব্যভিচারে লিপ্ত হয়েছে। ঠিক এমন সময় সেখানে গনেশ এসে হাজির। গনেশ ছিল পার্বতীর আপন ছেলে। তখন পার্বতী গনেশের থেকে নিজেকে লুকানোর জন্য নিজ চেহারা তুলশীর চেহারায়
পরিবর্তন করে ফেলে। তুলশীর সাথে গনেশের পূর্ব থেকে যৌন সম্পর্ক ছিল। তখন গনেশ নিজ মা পার্বতীকে তুলশী ভেবে তার
সাথে ব্যভিচারে লিপ্ত হয়। পরবর্তীতে এই ঘটনা শিব জানতে পেরে অভিশাপ দিয়ে নিজ ছেলে গনেশের মাথা হাতির মাথায় পরিবর্তন করে দেয়। (স্কন্ধ পুরাণ, নাগর খন্ডম ৪৪৪১, পৃঃ১-১৬)

এই হলো শিব এবং শিবলিঙ্গের ইতিহাস।

আর রামের কৃষ্ণের কথা সবাই কমবেশি জানে। কৃষ্ণ তার আপন মামী রাধাকে গভীর রাতে একা পেয়ে ধর্ষন করে, অতপর রাধাও ধর্ষন উপভোগ করে। পরিশেষে উভয়ে বিয়ে করে। উইকিপিডিয়ার তথ্য অনুযায়ী কৃষ্ণ ১৬১০০ গোপীনি বা রক্ষীতা পালন করতো। অর্থাৎ সারাটি জীবন হিন্দুদের এই প্রিয় দেবতা যৌনলীলা বা কৃষ্ণলীলা করে কাটিয়ে দিয়েছে।

এরকম প্রায় প্রতিটি তথাকথিত দেব দেবীর জীবনে রয়েছে অজস্র লাম্পট্য এবং অশ্লীলতায় পরিপূর্ণ। যেই লাম্পট্যের ছাপ তাদের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান মন্দির গুলোতেও আজও বিদ্যমান।

ভারতে যৌনতার ইতিহাস নতুন নয়, মালাউনরা শতশত বছর ধরে মন্দিরের ভিতর থেকেই যৌনলীলা চালিয়ে আসছে –

(http://goo.gl/7hWeR2)

হিন্দুদের অশ্লীল “খাজুরাহো মন্দির” চিত্র –

( http://goo.gl/JKdR14)

ভারতে হিন্দু মন্দিরে বিভিন্ন মূর্তির যৌন মিলনের প্রকাশ্য অশ্লীল দৃশ্য-

( http://goo.gl/w9KdM9)

হিন্দু ধর্মের অশ্লীলতার ধারাবাহিকতা অনুযায়ী এখনো পর্যন্ত মন্দিরের পুরোহিত, ধর্মগুরু,যোগীরা সেই ঐতিহ্য বজায় রেখে আসছে।

ভারতে হিন্দুদের ধর্মগুরু আশারাম বাপুর ভয়বহ যৌন জীবন প্রকাশ। মহিলা দর্শনার্থীদের বিভিন্ন কৌশলে সে শারীরিক সম্পর্কে বাধ্য করতো। কেউ গর্ভবতী হলে তার গর্ভপাতের ব্যবস্থা করে দিত। তার চেহারা সমাজে প্রকাশ হয়ে গেলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে-

(http://goo.gl/OnWvHR)
( http://goo.gl/xZS3Ie)
( http://goo.gl/2eOFu4)

ভূত তাড়ানোর নামে মহিলার সাথে যৌনসঙ্গম করলো পুরোহিত-

( http://goo.gl/LfnpQN)

ভারতে দুই কিশোরীকে ধর্ষনের দায়ে পুরোহিত গ্রেফতার –

( http://goo.gl/MAKHb9)

স্থানীয় সিঙ্গারচোলি নামক একটি মন্দিরে প্রতিদিন নিয়মিত যেতেন ওই গৃহবধূ। মাসখানেক আগে মন্দিরের পুরোহিত সন্তোষ কুমার কৌশিক ওই গৃহবধূকে বলে সে অশুভ আত্মার খপ্পরে পড়েছে। এ কারণে বিশেষ পূজা আয়োজনের পরামর্শও দেয় ওই পুরোহিত। এ সময় সে নিজেই এই পূজা সম্পন্ন করবে বলেও জানায়। ভূত তাড়ানোর নামে সেই গৃহবধূকে ধর্ষণ করেছে এক মন্দির পুরোহিত-

( http://goo.gl/QvgQso)

একাধিক ভণ্ড ধর্মীয় গুরু বা সাধুর বিরুদ্ধেও ধর্ষণের অভিযোগের খবর বেরিয়েছে। মামলাও হয়েছে এসব ঘটনায়।
এবার সেরকমই এক ভণ্ড সাধুর খপ্পরে পড়ে সতীত্ব হারালেন চল্লিশ বছরের এক মার্কিন নারী-

(http://goo.gl/0tKjAv)

হিন্দু ধর্মের একটা প্রাচীন বৈশিষ্ট্য হচ্ছে সেবাদাসী প্রথা। অর্থাৎ কিছু হিন্দু মহিলারা মন্দিরে থাকে এবং পুরোহিতদের যৌন চাহিদা পুরন করে থাকে। ইউটিউবে এমন অনেক ডকুমেন্টেরি পাবেন সেবাদাসী বা দেবদাসীর উপর।

সেই ভারতে এখনও নির্মম সেবাদাসী (পুরোহিতের যৌনদাসী) প্রথা বিদ্যমান। কিছুদিন আগে খবর বেরিয়েছে, শুধু দুই রাজ্যতে (অন্ধ্রপ্রদেশ ও তেলেঙ্গানা) সেবাদাসীর সংখ্যা ৮০ হাজার –

(http://goo.gl/EoazDa)

হিন্দু সাধুদের বদচরিত্রের আরো একটি নমুনা হচ্ছে “কুম্ভ মেলা”। এই মেলায় লক্ষ লক্ষ হিন্দু পুরুষ মহিলা উলঙ্গ হয়ে উৎযাপন করে।
হিন্দু নাংগা সাধুদের উলঙ্গ পুজা বা কুম্ভ মেলা। ( না দেখাই ভালো ) –

( http://goo.gl/1dfrDY)

ভারতের উত্তরাঞ্চলের এলাহাবাদে কুম্ভ মেলায় যোগ দেয়ার জন্য প্রায় তিন কোটি উলঙ্গ হিন্দু ধর্মাবলম্বী সন্ন্যাসী, ও তীর্থযাত্রী একত্রিত হয়েছে-

(http://goo.gl/CSvWPI)

কতটুকু বিকৃত মন মানসিকতা থাকলে ইনসেস্ট বা অযাচারের মত পৈশাচিক যৌন সম্পর্ক করা সম্ভব সেটা হিন্দুদের না দেখলে বিশ্বাস করা কঠিন। যেহেতু এই ভয়নক অশ্লীল কর্ম তাদের দেবতাদের মধ্যে বিরাজমান ছিলো সূতরাং নোংরা ধর্মীয় উত্তরাধিকারী সূত্রে হিন্দুরাও এর চর্চা করে।
ইনসেস্ট বা অযাচারের দেশ ভারত। নিজের পরিবারের লোকদের (বাবা,মা, ভাই, বোন, চাচা, চাচী, মামা,মামী) দ্বারাই ৭৬% মানুষ শারীরিক সম্পর্ক করে থাকে। বিবিসির ডকুমেন্টারি –

(http://goo.gl/RPHlGZ)

হিন্দু পরিবারের ইনসেস্ট এর আরো একটি বিশাৢল প্রতিবেদন,
Leading Indian dailies reported the bizarre news of a Mumbai businessman who was arrested for raping his daughter for nine years on the advice of a ‘tantrik’ to improve his business. The 21-year-old daughter exposed her ‘rapist’ father after he began sexually abusing her younger sister, a class 10 student… –

( http://goo.gl/13cBej)

আর অভ্যাস যে তাদের কতটুক মজ্জাগত তার প্রমান হচ্ছে হিন্দুদের অন্যতম নেতা পাপাত্মা গান্ধীর ছেলে। নিজের মেয়েকেই ধর্ষণ করেছিলেন পাপাত্মা গান্ধীর ছেলে-

( http://goo.gl/Akpli1)

পরবর্তীতে সেই নাতীকে গান্ধী নিজের কাছে এনে রাখে এবং বাকি জীবন আপন নাতিকেই রক্ষীতা বানিয়ে নিজের সাথেই রাখে।

এরকম অযাচারের ঘটনা হিন্দুদের মধ্যে অসংখ্য হচ্ছে সেটা পূর্বেই বলা হয়েছে। তারপরও দুই একটি নমুনা হিসেবে দেয়া যেতে পারে –

এবার হায়দ্রাবাদের কাঞ্চনবাগ এলাকায় ১৪ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণ করেছে তার চাচা-

( http://goo.gl/xnUzK2)

সৎ বাবার হাতে দিনের পর দিন ধর্ষিণের শিকার হয়েছে এক কিশোরী। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের তেলেঙ্গানার রঙ্গারেড্ডি জেলার মেডচাল এলাকায়। এই ঘটনায় উত্তাল রাজ্য। গত এক বছর ধরে ১৪ বছরের ওই স্কুলছাত্রীটিকে দিনের পর দিন ধর্ষণ করেছে তারই সৎ বাবা। এমনকী ক্রমশ এই ঘটনা চলতে চলতে মেয়েটি গর্ভবতী হয়ে পড়ে-

( http://goo.gl/CwWUo0)

পৃথিবীতে একজন সন্তানের সবচেয়ে বড় আশ্রয় কি? এই প্রশ্ন করা হলে উত্তর খোঁজার জন্য খুব বেশি সময় নিতে হয় না কাউকে। এক মুহূর্তের ব্যবধানেই উত্তর আসবে পিতা-মাতা। সভ্যতার ঊষালগ্ন থেকেই এই বিশ্বাস প্রবহমান। কিন্তু সেই আশ্রয় যখন কদর্য মনোবৃত্তির তাড়নায় ভেঙ্গে পড়ে তখন বিস্ময়, অবিশ্বাস, হতাশা আর ঘৃণা ছাড়া আর কিছুই অবশিষ্ট থাকে না। যে পিতা সন্তানের প্রথম ও শেষ আশ্রয়, যে পিতা সন্তানকে আগলে রাখেন সব অশুভ থেকে, সেই পিতা নামধারী এক পাষণ্ডই হিন্দু মালাউন ধর্ষণ করেছে তার কিশোরী কন্যাকে, অতঃপর হত্যাও-

( http://goo.gl/57A20D)

ভারতের হরিয়ানা রাজ্যে এবার এক গৃহবধূকে ধর্ষণ করলো নিজের শ্বশুর ও ভাসুর –

( http://goo.gl/Xa7a8t)

ভারতে ১২ বছরের নাবালিকা কন্যাকে ধর্ষণ করতো মালাউন বাবা। নির্যাতিতা নাবালিকা চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী। নির্যাতিতা নাবালিকা মেয়েটি জানিয়েছে, তার যখন ছয় বছর বয়স ছিল তখন থেকেই তাকে তার বাবা ধর্ষণ করত। ধর্ষণের আগে তার বাবা তার মাকে অজ্ঞান করার ওষুধ খাইয়ে দিত যাতে ঘটনার কথা তার মা জানতে না পারে। মা অজ্ঞান হয়ে গেলেই মেয়ের উপর পৈশাচিক অত্যাচার শুরু করত বাবা-

( http://goo.gl/KcFWfj)

কত নিকৃষ্ট হলে এমন কাজ করা সম্ভব ? যেহেতু তারা হিন্দু মালাউন তাই তাদের পক্ষে এসব সম্ভব। দেখুন মালাউনদের বিকৃত রুচি, মেয়ে-জামাইয়ের সন্তান গর্ভে ধারণ করলো মা-

(http://goo.gl/pHWRXO)

ভারতে নিজের কিশোরী মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে এক বাবাকে আটক করেছে পুলিশ। হরিয়ানা রাজ্যের সোনেপাত গ্রামের ওই কিশোরী পুলিশকে জানায়, তার বাবা তাকে উপর্যুপরি ধর্ষণ করেছে-

(http://goo.gl/hRXK64)

ধর্ষণের রাষ্ট্র ভারতে ঘটেছে আরো একটি ন্যাক্কার জনক ঘটনা। ভারতের মেয়েরা নিজের বাবার কাছেও সুরক্ষিত না তা প্রমান করে দিল এই নরপিচাশ।বাবার হাতেই ধর্ষিত হলো নাবালিকা –

( http://goo.gl/FFRMnl)

ভারতের শিলিগুড়িতে মায়ের পরে ১১ বছরের বোনকে ধর্ষন ও খুন করল ভাই-

(http://goo.gl/1b19cw)

হিন্দু উৎপাদন কেন্দ্র ভারত হচ্ছে সারাবিশ্বে ধর্ষনের রাজধানী। কতটা ভয়াবহ অবস্থা এখানে নিজের চোখেই দেখুন।

২০১০ সালের হিসাব অনুযায়ী প্রতি ঘন্টায় ভারতের দুজন মহিলা ধর্ষন হয়ে চলেছে ক্রমাগত। গত বছরে ২০,৭৩৭ জন মহিলা ধর্ষন হয়েছে এদেশে। যা বিগত বছর গুলির তুলনায় ৭.২ শতাংশ বেশী।আর ভারত বর্ষের মধ্যে ধর্ষনের মাত্রা সবথেকে বেশী মধ্যপ্রদেশ রাজ্যে। মধ্যপ্রদেশ বছরে ধর্ষনের পরিমান ৩০১০ টি যা দেশের মোট ধর্ষনের ১৪.৫ শতাংশ। এর পরেই পশ্চিমবঙ্গ এখানে বিগত বছরে ধষর্নের মোট ঘটনা ঘটেছে ২.১০৬ টি। যার মধ্যে গন ধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে ৯৩ টি। এর পরেই স্থান পেয়েছে উত্তর প্রদেশ (১,৬৪৮),বিহারে (১,৪৫৫) এবং রাজস্থান (১.২৩৮)ধর্ষনের ক্ষেত্রে ৯২.৫ শতাংশ ঘটনার ক্ষেত্রে দেখা গেছে ধর্ষক ধর্ষিতার পরিচিত কেউ। ৬৯০২ টি ধর্ষনের ক্ষেত্রে দেখা গেছে ধর্ষক ধষির্তার প্রতিবেশি। পরিবারের বাবা অথবা ভাই-দাদার কাছে ধর্ষন হয়েছে এমন ঘটনা ৪০৫ টি। আত্মীয়ের দ্বারা ধর্ষনহয়েছে এমন ঘটনা ১৪৪৮ টি। ৯০ শতাংশ ধর্ষনের ঘটনায় ধষর্ক ও ধষির্তার সুসম্পর্ক ছিলো। তারা একে অপরের সাথে কথা-বার্তা বলতো। ১৮-৩০ বছরের মহিলার বেশি ধর্ষিত হয়েছে। ধর্ষক এর বয়স বেশি ভাগ ক্ষেত্রে ৩০-৫০ বছর। দেশে ধর্ষন হওয়া মেয়েদের মধ্যে ৬১৭ জন ১০ বছরের নিচে। ৪,৫০৭ জন ১০-১৮ বছরের। নারীদের উপর অত্যাচারে সবর্চ্চ স্থান অন্ধ্রপ্রদেশের। দেশের মোট অভিযোগ দায়ের করা ঘটনার ১৩.৩ শতাংশ অন্ধ্রপ্রদেশে। ধর্ষনের ও অন্যান্য নারী অত্যাচারে পশ্চিমবঙ্গ ক্রমবর্ধমান। এখানে মোট নারী নির্যাতনের ঘটনা ২২৬৭৪ টি। যা বিগত বছরে ছিলো ১৭৫৪৬ টি। ২০০৮ সালে এরাজ্যে গনধর্ষন হয়েছে ৯৩ টি। ধর্ষন হয়েছে ২০৯৫ টি। যৌন বৃত্তি করানোর জন্য নারী অপহরন হয়েছে ১৩৭ টি। মোট নারী অপহরনের সংখ্যা ১৮২৯ টি। ইভটিজিং এর অভিযোগ দায়ের করা সংখ্যা ১০২ টি। পনের জন্য পুড়িয়ে মারা হয়েছে ২৪ জনকে। অন্য উপায়ে পনের জন্য খুন হয়েছে ৫৪ জন। পনের পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করা হয়েছে ৩৭ জনকে। অন্যউপায়ে পনের জন্য খুন করার চেষ্টা করা হয়েছে ৩৩০ জন মহিলাকে।পনের জন্য আগুনে পুড়ে আত্মহত্যা করেছেন ১২৭ জন। অন্যউপায়ে পণ প্রথার কারনে আত্মহত্যা করেছে ৩২৫ জন। শ্বশুর বাড়ীর অত্যাচারের স্বীকার ১৩৯৪৭ জন মহিলা। ১৮ বছরের নিচে নারী পাচারের ঘটনা ধরা পরেছে ৪ টি। এই যাবতীয় তথ্য শুধু সেই সব নারীদের যারা প্রকাশ্যে এনেছে তাদের উপর অত্যাচারের কথা। পর্দার অন্তরালে এ সংখ্যা শতগুন বেশি। আরো একটি সমীক্ষায় জানা যায় , দুই তিন বছর আগেই ভারতে প্রতি আধঘন্টায় একজন করে মহিলা ধর্ষনের শিকার হচ্ছেন বলে এক সমীক্ষায় জানা গেছে। কমনওয়েলথ হিউম্যান রাইটস ইনিসিয়েটিভের একটি সমীক্ষায় উঠে এসেছে এই তথ্য । ২০০১ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত ভারতের ২৮টি রাজ্য ও ৭টি কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলে মোট ২ লক্ষ ৭২ হাজার ৮৪৪টি অপরাধের ঘটনা লিপিবদ্ধ হয়েছে তার মধ্যে ২ লক্ষ ৬৪ হাজার ১৩০টিই ধর্ষনের ঘটনা বলে লিপিবদ্ধ হয়েছে। অর্থাৎ গড়ে প্রতিদিন ৫৬টি ধর্ষনের ঘটেছে। কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির মধ্যে দিল্লিতেই গত ১৩ বছরে ৮০৬০টি ধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে। সমীক্ষ্ থেকে আরও ভয়ঙ্কর যে তথ্যটি উঠে এসেছে তা হল গত ১৩ বছরে ধর্ষনের হার বেড়েছে প্রায় ৫২ শতাংশ। ২০০১ সালে যেখানে গোটা ভারতে ধর্ষনের সংখ্যা ছিল ১৬০৭৫টি সেখানে ২০১৩ তালে তা বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ৩৩৭০৭টি। আর দিল্লিতে এই বৃদ্ধির পরিমাণ ৩২৫ শতাংশ।
ধর্ষণের পরিসংখ্যানে মধ্যপ্রদেশের পরেই রয়েছে রাজস্হান (৩২৮প্ত), মহারাষ্ট্র (৩০৬৩ ), উত্তরপ্রদেশ (৩০৫০) ও তামিলনাড়ু (৯২৩)৷ এনসিআরবি-এর তথ্য অনুযায়ী, অধিকাংশ ধর্ষণে পরিবারের সদস্য, আত্মীয়স্বজন জড়িত।

ভারতে প্রতি আধ ঘন্টায় একজন মহিলা ধর্ষিতা হয়-

(http://goo.gl/oLnawk)

প্রতিদিন ২৪টি শিশু ধর্ষিত হচ্ছে ভারতে-

( http://goo.gl/F2Gu8z)

দিনে গড়ে ৯৩ জন মহিলা ধর্ষিত হয় ভারতে, প্রতিবেদন দেখুন-

( http://goo.gl/1ZUmRg)

পরিসংখ্যান ক্রমে বেড়েই চলেছে। পরবর্তী হিসাবে ভারতে প্রতিদিন ধর্ষিত হচ্ছে ৯২ নারী-

( http://goo.gl/XIJn3A)

শীর্ষ দশটি ধর্ষনকারী দেশের মধ্যে ভারতের স্থান চতুর্থ-

( http://goo.gl/5Gbzs4)

ভারতে প্রতি বছর ৩০ লক্ষ শিশুকে যৌন ব্যবসায় নামতে বাধ্য করা হচ্ছে-

( http://goo.gl/iJx44n)

উইকিপিডিয়াতে ইন্ডিয়ার ধর্ষনের পরিসংখ্যান, শুধু ২০১৩ সালেই ভারতে ২৪৯২৩ টা ধর্ষন হয়েছে-

(http://goo.gl/ziIRa4)

এই মালাউন হিন্দু দেশ ইন্ডিয়া এতই নোংরা যে, এখানে অর্থনীতির এক বিরাট অংশ আসে পতিতাবৃত্তি বা দেহব্যাবসা করে –

হিন্দুরা ইন্ডিয়াতে তাদের শিশুদের দিয়ে দেহব্যবসা করে দেশের অর্থনৈতির চাকা ঘুরায় আর পেট চালায়। দেখুন ভারতে শিশু যৌন ব্যাবসা এখন ৩৪ কোটি ডলারের ইন্ডাস্ট্রি –

(http://goo.gl/OBbx2n)

ভারতে প্রতি বছর ৩০ লক্ষ শিশুকে যৌন ব্যবসায় নামতে বাধ্য করা হচ্ছে-

( http://goo.gl/iJx44n)

ভারতের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের ধর্ষন এবং ধর্ষন প্রসঙ্গে তাদের কিছু আলোচিত বক্তব্য-

সম্প্রতি ভারতের উত্তর প্রদেশে এক সাথে দুই বোন ধর্ষিত হওয়ার ঘটনায় এক উদ্ভট মন্তব্য “‘কখনও কখনও ধর্ষণ ভালো’! বলে আলোচনায় এসেছে ইন্ডিয়ার ক্ষমতাসীন দল বিজেপি( ভারতীয় জনতা পার্টি) জোটের এক প্রতিমন্ত্রী, –

( http://goo.gl/esr9Lz)

ভারতে ধর্ষণ নিয়ে ভারতের রাজনীতিকদের স্বভাব সুলভ মন্তব্য-

(http://goo.gl/0hjjrx)

পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেসের এমপি ও অভিনেতা তাপস পাল হুমকি দিলো লোক দিয়ে ধর্ষণ করিয়ে দেবো:

( http://goo.gl/fraq8M)

নির্বাচনের পর ধর্ষন করতে বললো ভারতে মহারাষ্ট্রের সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী –

( http://goo.gl/8n84vS)

সিআরপিএফ জওয়ান কতৃক প্রতিবন্ধী নারী ধর্ষণ, ধর্ষণ থেকে বাঁচতে তরুণীর চলন্ত ট্রেন থেকে লাফ, কংগ্রেস নেতা ধর্ষণ করতে গিয়ে গণপিটুনির শিকার-

( http://goo.gl/fWC6Yo)

ভারতের উগ্র হিন্দুত্ববাদী দল শিবসেনার এক সাবেক জেলা সহ-সভাপতিকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক করা হয়েছে। এর পর তার বাসা থেকে পর্নো সিডি ও ১৫ প্যাকেট ভায়াগ্রা ট্যাবলেট উদ্ধার করেছে পুলিশ-

( http://goo.gl/R9Mmf6)

এবার আসুন ভারতে হিন্দুদের কিছু ধর্ষনের খবর জেনে নেয়া যাক। একটা কথা মনে রাখবেন, আমি যত সংবাদই দেই না কেন মূলত বাস্তবতার তুলনায় লেগুলো খুবই ক্ষ্মীন। যে দেশে সরকারি হিসাবে প্রতিদিন ৯৩ টা ধর্ষন হয় সেখানে আমার এই পোস্টে উল্লেখিত ৭০/৮০ টা সংবাদের লিংক খুবই হাস্যকর। গুগলে সার্চ করলে হাজার হাজার নিউজ পাওয়া যায়॥ আমি শুধু আপনাদের নিকৃষ্ট হিন্দুদের চরিত্রটাই দেখাতে চাচ্ছি। তাহলে চলুন আরো কিছু ঘটনা জানা যাক –

ভারতে যৌন নির্যাতনে প্রাণ হারালেন ৮৪ বছরের বৃদ্ধা-

(http://goo.gl/zGog3k)

দেখুন ভারতে হিন্দুরা কিভাবে প্রকাশ্যে রাস্তায় মহিলাদের গনধর্ষন করে থাকে (ভিডিও) –

(http://goo.gl/1lNFo0)

এক মালাউন হিন্দু , ছয় বছরের একটি শিশুর গোপনাঙ্গে লোহার রড ঢুকিয়ে বিকৃতকামনা পৈশাচিক রুচি মেটাল –

(http://goo.gl/7neAni)

পর পর তিনবার পুত্র সন্তানের জন্ম দেয়ায় কোলকাতার এক গৃহবধুকে শ্বশুরবাড়ীর লোকজন জোর করে রেখে এসেছিল সোনাগাছির যৌনপল্লীতে –

http://goo.gl/1L4wwx)

গরু ধর্ষন করে ধরা খেলো এক মালাউন হিন্দু –

(http://goo.gl/z69IsU)

ভারতে এবার পোল্যান্ডের এক নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। মেয়েকে নিয়ে মথুরা শহর থেকে রাজধানী দিল্লিগামী একটি ট্যাক্সিতে ওঠার পর ধর্ষণের শিকার হয় সে-

(http://goo.gl/qe1rtw)

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে চলন্ত বাসে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক নাইজেরিয়ান নারী পর্যটক –

(http://goo.gl/TU5EXD)

অ্যাসিড খাওয়ানোর ভয় দেখিয়ে ধর্ষন করা হল এক যুবতীকে। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষেন পূর্ব দিল্লির অমন কলোনী এলাকায়-

(http://goo.gl/NKaSO5)

খাবারের লোভ দেখিয়ে মূক বধির এক কিশোরীকে ধর্ষন করেছে এক হিন্দু যুবক-

(http://goo.gl/ydWkF1)

ভারতে ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) কার্যালয়ে ৫ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ করা হয়েছে-

( http://goo.gl/DmZLwE)

ভারতে পুলিশ কর্তৃক ৫ বছরের শিশু ধর্ষিত-

(http://goo.gl/hDavQ2)

ভারতে ধর্ষিত তিন নাবালিকা গর্ভবতীতে হয়ে পরায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি-

( http://goo.gl/aEx9Ao)

ভারতে ধর্ষন একটা নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে। এবার ভরতের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার মহেশতলা মহিলাকে মাদক খাইয়ে অটোয় গণধর্ষণের অভিযোগ-

( http://goo.gl/Ci4YLV)

ভারতে একের পর এক ধর্ষণের ঘটনার সঙ্গে এবার যুক্ত হলো সেনাবাহিনীও। পাঁচ সন্তানের মা এক গৃহবধূকে এবার ধর্ষণ করলো এক সেনা সদস্য-

( http://goo.gl/E4i7Y3)

ভারতে ৯ বৎসরের এক শিশুকে ধর্ষন করেছে চকলেটের প্রলোভন দেখিয়ে-

( http://goo.gl/IsIapQ)

দিল্লির দামেনীর ঘটনার ক্ষত শুকাতে না শুকাতেই দিল্লীতে আবার বাসে গন ধর্ষনের শিকার হয়েছে ২৪ বছর বয়সী এক তরুনী-

( http://goo.gl/QAu37B)

ভারতের উত্তরাঞ্চলীয় নগরী জয়পুরে জাপানের এক নারী পর্যটককে ধর্ষণ করেছে এক হিন্দু গাইড-

( http://goo.gl/EySghv)

পাঁচ বছরে ছাত্রীকে ১৭৫ বার ধর্ষণের অভিযোগ শিক্ষকের বিরুদ্ধে। মধ্য দিল্লির একটি স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী শৈলেন্দ্র কুমার নামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে, সে যখন চতুর্থ শ্রেণিতে ছিল, তখন থেকে ওই শিক্ষক ধর্ষণ করত-

( http://goo.gl/423kry)

ভারতে স্কুল বাসে চার বছর বয়সী এক শিশু ধর্ষিত-

( http://goo.gl/3N6Odg)

ট্রান্সফর্মারের সুইচ নিভিয়ে গোটা এলাকা অন্ধকার করে বাড়িতে ঢুকে দুই গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে ভারতের হাওড়ার আমতায়। শুধু তাই নয়, মদ্যপ দুষ্কৃতকারীরা ব্লেড দিয়ে তাদের দেহের বিভিন্ন অংশ ক্ষতবিক্ষত করেছে-

( http://goo.gl/xw9aZl)

এই মহামারী আকারে ধর্ষনের জন্য বিদেশী পর্যটকদের ভারতে যেতে নিষেধও করা হয়। জাপান, নাইজেরিয়া, পোল্যান্ড সহ অনেক বিদেশী মহিলাদের ধর্ষন করার কারনে চিন্তিত পৃথীবিবাসী। ফলশ্রুতিতে ধর্ষনের কারনে ভারত ভ্রমণে নারীদের সতর্ক করছে সারাবিশ্ব-

( http://goo.gl/lVkTSw)

অশ্লীল, অসভ্য, বর্বর, চরিত্রহীন ধর্ষনপ্রীয় জাতি হিন্দু দের নিয়ে আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য :

ভারতের হিন্দুদের ৯৮% মানুষের কোন বৈধ পিতা নাই। অর্থাৎ ৯৮% হিন্দুর কোন প্রকৃত পিতার পরিচয় নেই। সহজ ভাষায় যেটাকে বলা হয় বেজন্মা জাতি। দেখুন, পরকীয়ার রাজ্য গুজরাটে ৯৮% পিতৃত্ব মিথ্যা –

(http://goo.gl/OjLMYM)

এরকম অসংখ্য পিতার পরিচয়হীন সন্তান সেখানে প্রতিনিয়ত জন্ম নিচ্ছে। তাদের মধ্যে কন্যা শিশু গুলো হত্যা করে ফেলছে বর্বর হিন্দুরা। গত ৩০ বছরে সেখানে প্রায় ১ কোটি ২০ লক্ষ কন্যা ভ্রুণ হত্যা করা হয়েছে

(http://goo.gl/S8wzQx)

এত নোংরামী কেন হয় ভারতে হিন্দুদের মধ্যে? প্রশ্ন আসাটাই স্বাভাবিক। উত্তরটা জেনে নিন। হিন্দুদের ধর্মগত এবং জন্মগত স্বভাবই এর জন্য দায়ী। গ্লোবাল ডেটিং ওয়েবসাইড অ্যাসলে মেডিসন পরিচালিত এই জরিপে দেখা গেছে, ৭৬ শতাংশ ভারতীয় নারী এবং ৬১ শতাংশ ভারতীয় পুরুষ মনে করে পরকীয়া কোনো পাপ বা অনৈতিক কাজ নয়। জরিপে অংশগ্রহনকারীদের সকলেই বিবাহিত কিংবা কারো সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িত –

( http://goo.gl/MFMx21)

কতটুকু লম্পট জাতি হলে এমনটা সম্ভব?
দেখুন লম্পট হিন্দুদের দেশ ভারতে দৈনিক ৫০ মিলিয়ন মানুষ পর্নোগ্রাফি দর্শন করে থাকে-

(http://goo.gl/7hWeR2)

অসভ্য বর্বর জাতি হচ্ছে হিন্দু জাতি। এখনো ৭০% এরও বেশি হিন্দুর টয়লেট নেই বাড়িতে। যে কারনে তারা খোয়া জায়গায় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেয়। আর সেই শৌচালয়ের অভাবে বাহিরে গেলে ভারতের মহিলারা ধর্ষন হচ্ছে গনহারে-

( http://goo.gl/OQeSrq)

এত ধর্ষন হয় যে ভারতে বাধ্য হয়ে ধর্ষণ প্রতিরোধক ব্রা তৈরি করেছে ভারতীয় প্রকৌশলীরা-

(http://goo.gl/6po0nJ)

শেষ পর্যন্ত পৃথিবীবাসীর সামনে লজ্জায় পরে ভারতে ধর্ষণ নিয়ে তথ্যচিত্র প্রচারে নিষেধাজ্ঞা –

(http://goo.gl/nCWM5P)

চারপাশে ধর্ষন দেখে অতিষ্ঠ এক নারী বললো, আমি দিল্লি থেকে এসেছি। এটা ভারতের রাজধানী। আবার এটা ভারতের ধর্ষণের রাজধানীও বটে! ভারতীয়রা মহিলাদেরকে শুধু বেশ্যা বা পতিতা ভাবে। আসলে আমরা ভারতীয়রা হিপোক্রেট-

( http://goo.gl/pNO0l0)

এবার আসুন আসল কথায়। এতসব ধর্ষনের খবর দেখে মনে হতে পারে হিন্দু মালাউনের জাত মনে হয় খুবই যৌন বীর। ঘটনা কিন্তু মোটেও সেরকম নয়। প্রকৃত ঘটনা কি সেটা নিজেই পড়ে দেখুন।

মূলত এই লম্পট হিন্দুরা এতই শারীরিক অক্ষম যে, বিয়ের আগে ভারতে যৌন সক্ষমতা পরীক্ষার সুপারিশ করা হয়েছে-

( http://goo.gl/LV62FY)

হিন্দু অক্ষমতা কোন পর্যায়ের সেটা জানতে পারবেন নিচের এই প্রতিবেদনটা পড়লে-
Condoms ‘too big’ for Indian men ,BBC News, Delhi

There is a “lack of awareness” over condom sizes
A survey of more than 1,000 men in India has concluded that condoms made according to international sizes are too large for a majority of Indian men.

( http://goo.gl/GMvC)

( http://goo.gl/EIEJ1q)

আর সেকারনে পারিবারিক জীবনে হচ্ছে ভায়নক বিপর্যয়। কেমন বিপর্যয় ? এই দেখুন,
অক্ষমতার লজ্জা সইতে না পেরে স্ত্রীর সামনেই স্বামীর আত্মহত্যা-

(http://goo.gl/94KCsS)

হে সম্মানিত পাঠক ! এবার আপনারাই বলুন, এই হিন্দু মালাউন গুলো কি মানুষের শ্রেনীতে পরে ? শুধু যৌন বিকৃতি লম্পট্য পৈশাচিকতা ছাড়া আর কি আছে তাদের কাছে ?
এমন পিশাচ বলেইতো হিন্দু মালাউন বিজেপি নেতা আদিত্যনাত প্রকাশ্য জনসভায় প্রশাসনের উপস্থিতিতে নিজের দলের লোকদের বলেছে, “মুসলমান মহিলাদের লাশ কবর থেকে তুলে ধর্ষন কর।” নাউযুবিল্লাহ!

(http://goo.gl/wFXKEQ)

(http://goo.gl/S8Ll6L)

wpid-1422417_1058469140833598_4188989350205297015_n

এমন বিকৃত রুচির পিশাচ বলেই নিরীহ এক মুসলমানকে মিথ্যা ধর্ষনের অভিযোগ তুলে জেল ভেঙ্গে বের করে এনে পৈশাচিক কায়দায় হত্যা করেছে। নাউযুবিল্লাহ

( http://goo.gl/VbvOQt)

এদের পৈশাচিকতায় আজ ভারতের নিরীহ মুসলমান অতিষ্ঠ। নির্যাতিত হচ্ছে প্রতিনিয়ত হিন্দুদের দ্বারা। সমগ্র বিশ্বের দেখা দরকার হিন্দুরা কত বর্বর। কতটা নোংরা তাদের ধর্ম এবং কর্ম। সভ্য জগতের মানুষের উচিত হিন্দুদের দেশ থেকে বের করে আমাজান জঙ্গলে জঙ্গলীদের সাথে রেখে দেয়া।

বিঃদ্রঃ অনেক মালাউন কিংবা সুশীল সমাজের লোকরা বলতে পারে, বাংলাদেশে বা মুসলমান কোন দেশে কি ধর্ষন হয় না ?
উত্তর হচ্ছে, হয়। তবে হিন্দু দেশ ইন্ডিয়ার মত নয়। যে দেশে প্রতি মিনিটেই ধর্ষন হয় সেটা আর যাই হোক সভ্য কিছু হতে পারে না। ইন্ডিয়ায় এক ঘন্টায় যে পরিমান প্রকৃতপক্ষে ধর্ষন হয় , বাংলাদেশ কিংবা কোন মুসলিম দেশে এক বছরেও হয় না। আর আমি বলবো, বাংলাদেশে যে ধর্ষনগুলো হয় তার জন্য এই ইন্ডিয়া ১০০% দায়ী। প্রশ্ন করতে পারেন কেন? উত্তর হচ্ছে, এই মালাউনদের বিকৃত অরুচিকর, অশ্লীল মিডিয়া, সিনেমা, সিরিয়াল দেখে কিছু লোক বিপথগামী হচ্ছে তারাই কিছু কিছু অঘটন ঘটিয়ে বসছে। এর দায়ভারও হিন্দু ইন্ডিয়াকেই নিতে হবে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s